সোমবার থেকে রাজ্যে দু’সপ্তাহের জন্য পূর্ণ লকডাউন ঘোষণা করল তামিলনাড়ু সরকার

এ বার সম্পূর্ণ লকডাউনের পথে হাঁটল তামিলনাড়ু সরকার। আগামী সোমবার, ১০ মে থেকে দক্ষিণের এই রাজ্যে শুরু হবে লকডাউন। তা চলবে ২৪ মে পর্যন্ত। শনিবার স্ট্যালিন সরকারের তরফে জানানো হয়েছে, কোভিডের দ্বিতীয় ঢেউয়ের জেরে তৈরি হওয়া ‘অনিবার্য পরিস্থিতি’তে সম্পূর্ণ লকডাউনের সিদ্ধান্ত নেওয়া হল।

যদিও এই লকডাউনের সময় মুদিখানা, সব্জি, মাছ, মাংসের দোকান বেলা ১২টা অবধি খোলা রাখা যাবে। বাকি সব দোকান থাকবে বন্ধ। মদের দোকানও সম্পূর্ণ বন্ধ। রেস্তরাঁগুলি থেকে শুধু মাত্র হোম ডেলিভারি করা যাবে। জরুরি পরিষেবার সঙ্গে যুক্তরা কাজে যেতে পারবেন। বাকিদের বাড়ি থেকে কাজ করতে হবে। অবশ্য লকডাউনে পেট্রল পাম্প খোলা থাকবে সে রাজ্যে। মানুষ যাতে লকডাউনের প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র জোগাড় করে রাখতে পারেন সে জন্য শনিবার এবং রবিবার সকাল ৬টা থেকে রাত ৯টা পর্যন্ত দোকান খুলে রাখার অনুমতি দেওয়া হয়েছে।

পশ্চিমবঙ্গের মতো তামিলনাড়ুতেও চলছিল বিধানসভা ভোট। যার জেরে জনসভা, পথসভাতে দেখা যায়নি দূরত্ববিধি। বিগত কয়েক মাসে মাস্কও দেখা যায়নি ভিড়ে উপস্থিত জনতার একটা বড় অংশের মধ্যে। এ নিয়ে উদ্বেগও প্রকাশ করেছিল মাদ্রাজ হাইকোর্ট। শুক্রবারই সে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী হিসাবে শপথ নিয়েছেন এমকে স্ট্যালিন। তার পরই শনিবার জারি করা হল লকডাউন।

প্রসঙ্গত, গত কয়েক সপ্তাহে তামিলনাড়ুতে হু হু করে বেড়েছে কোভিড আক্রান্তের সংখ্যা। গত কয়েকদিন তা থাকছে ২০ হাজারেরও বেশি। গত ২৪ ঘণ্টায় সেখানে আক্রান্ত হয়েছেন ২৪ হাজার ৪৬৫ জন। সে রাজ্যে গত কয়েকদিনে ধরে রোজ মারা যাচ্ছেন ১০০-র বেশি করোনা রোগী। সক্রিয় রোগীর সংখ্যাও সেখানে ১ লক্ষ পার করেছে। এই পরিস্থিতির মোকাবিলা করতেই জারি হল ১৪ দিনের লকডাউন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.