Champions League: ৯ গোলের দুরন্ত ম্যাচে বড় জয় ম্যান সিটির, হ্যাটট্রিক করেও ট্র্যাজিক নায়ক ক্রিস্টোফার

আক্রমণ-প্রতিআক্রমণে ভরা চ্যাম্পিয়ন্স লিগের উপভোগ্য ম্যাচে বড় জয় পেল ম্যাঞ্চেস্টার সিটি। ঘরের মাঠে আরবি লিপজিগকে তারা ৬-৩ গোলে হারিয়ে দেয়। তবে দলের জয়ের থেকেও ম্যান সিটি সমর্থকরা খুশি হবেন দুর্দান্ত একটি ফুটবল ম্যাচের সাক্ষী থাকতে পারায়। ভাগ্য ভালো না থাকলে চ্যাম্পিয়ন্স লিগের কোনও ম্যাচে ৯টি গোল দেখতে পাওয়া যায় না সহজে।

এমন একটি উত্তেজক লড়াইয়ে ম্যাঞ্চেস্টার সিটি জয় তুলে নেয় বটে, তবে নজর কেড়ে নেন প্রতিপক্ষ লিপজিগের ফরাসি মিডফিল্ডার ক্রিস্টোফার এনকুনকু। হ্যাটট্রিক করেও দলকে জেতাতে না পারায় ম্যাচের ট্র্যাজিক নায়ক হয়ে থেকে যান তিনি।ট্রেন্ডিং স্টোরিজ

ম্যাচের ১৬ মিনিটের মাথায় গ্রিলিশের পাস থেকে গোল করে ম্যান সিটিকে এগিয়ে দেন ন্যাথন আকে। ২৮ মিনিটের মাথায় মুকিয়েলের আত্মঘাতী গোলে সিটির ব্যবধান বেড়ে ২-০ হয়। ৪২ মিনিটে মুকিয়েলের পাস থেকেই গোল করে ব্যবধান কমিয়ে ২-১ করেন লিপজিগের ক্রিস্টোফার। প্রথমার্ধের ইনজুরি টাইমে (৪৫+২) পেনাল্টি থেকে গোল করেন মাহরেজ। ম্যান সিটি বিরতিতে মাঠ ছাড়ে ৩-১ গোলের লিড নিয়ে।

দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতেই ফের গোল করেন এনকুনকু। ৫১ মিনিটে দানি ওলমোর পাস থেকে সিটির জালে বল জড়ান তিনি। স্কোর-লাইন দাঁড়ায় ৩-২। ৫৬ মিনিটে রুবেন ডায়াসের ক্রস থেকে গোল করেন গ্রিলিশ। সিটি এগিয়ে যায় ৪-২ গোলে। ৭৩ মিনিটে পলসেনের পাস থেকে তৃতীয়বার ম্যাঞ্চেস্টারের জালে বল জড়িয়ে দেন ক্রিস্টোফার এবং লিপজিগের প্রথম ফুটবলার হিসেবে চ্যাম্পিয়ন্স লিগে হ্যাট্রটিক পূর্ণ করেন। পুনরায় ব্যাবধান কমিয়ে ৪-৩ করে লিপজিগ।

৭৫ মিনিটে গুন্দোয়ানের পাস থেকে গোল করেন জোয়াও ক্যানসেলো। সিটি ৫-৩ গোলের লিড নেয়। ৮১ মিনিটে গ্রিলিশের পরিবর্তে মাঠে নামা জেসুস ৮৫ মিনিটে সিটির হয়ে ষষ্ঠ গোলটি করেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.