অন্যান্য ভারতীয় ভাষার ‘সখী’ হিন্দি, ‘ভাষা সমন্বয়ে’র পক্ষে জোর সওয়াল অমিত শাহের

হিন্দির মাধ্য দেশকে ‘ঐক্যবদ্ধ’ করতে প্রথম থেকেই বদ্ধপরিকর ছিল বিজেপি। তবে বিভিন্ন সময়ে দক্ষিণ এবং পূর্বের রাজ্যগুলির চাপে সেই ইচ্ছে থেকে পিছিয়ে এসেছে কেন্দ্র। তবে মঙ্গলবার হিন্দি দিবস উপলক্ষে ফের সরকারি ভাষা হিসেবে হিন্দি ভাষা ব্যবহারের পক্ষে জোরালো সওয়াল করলেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। তাঁর দাবি, অন্য কোনও ভাষার সঙ্গে দ্বন্দ্ব নেই হিন্দির। হিন্দি সকল ভাষার সখী। সব ভাষার সমন্বয়েই দেশের অগ্রগতি সম্ভব। অমিত শাহের কথায়, হিন্দি এবং ভারতের অন্যান্য সব ভাষাকেই অগ্রাধিকার দিয়ে তুলে ধরতে হবে।

মঙ্গলবার কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ বলেন, ‘আবেগের বহিঃপ্রকাশ করার সবচেয়ে শক্তিশালী মাধ্যম হল ভাষা। প্রধানমন্ত্রী যদি আন্তর্জাতিক ক্ষেত্রে গিয়ে হিন্দিতে কথা বলতে পারেন, তাহলে আমরা কেন হিন্দি বলতে বিব্রত বোধ করব? সেই দিন চলে গিয়েছে যখন মনে করা হত যে হিন্দি বলাটা ব্যক্তিত্বের বিকাশের ক্ষেত্রে সমস্যার। আত্মনির্ভর হওয়ার অর্থ শুধু দেশের মধ্যে উৎপাদন নয়। আমাদের ভাষার ক্ষেত্রেও আত্মনির্ভর হতে হবে। মোদীজির নেতৃত্বে আমরা হিন্দি ও অন্যান্য ভাষার সমান্তরাল উন্নয়নে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ।’ট্রেন্ডিং স্টোরিজ

দেশবাসীর কাছে মাতৃভাষার পাশাপাশি হিন্দি ভাষাও ব্যবহারের আবেদন জানিয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আরও বলেন, ‘হিন্দি দিবসে আমি সব দেশবাসীর কাছে আবেদন করছি যে, তাঁরা যেন তাঁদের নিত্যদিনের কাজে মাতৃভাষার পাশাপাশি সরকারি ভাষা হিন্দিকেও সমান গুরুত্ব দিয়ে ব্যবহার করেন কারণ মাতৃভাষা ও সরকারি ভাষার সমন্বয়ের উপরই দেশের অগ্রগতি নির্ভর করছে। আমাদের সাংস্কৃতির সচেতনতা ও জাতীয় ঐক্যের ভিত্তি হিসেবে দাঁড়িয়ে রয়েছে হিন্দি। পাশাপাশি প্রাচীন সভ্যতা, আধুনিকতা ও উন্নয়নের মধ্যে সেতুবন্ধনের কাজ করছে হিন্দি।’

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.