২৬ ফেব্রুয়ারি পাক অধিকৃত কাশ্মীরে ঢুকে জইশ ই মহম্মদের ক্যাম্পের এয়ারস্ট্রাইক করে ভারতীয় বায়ুসেনা৷ বালাকোটের যে জায়গায় এই জঙ্গি ক্যাম্পের কাছাকাছি একটি মসজিদ ছিল৷ তবে ভারতীয় বায়ুসেনা এতটাই সতর্কতা বজায় রেখে নিজেদের টার্গেট ঠিক করে যে, এই মসজিদের কোনও ক্ষয়ক্ষতি হয়নি৷

হিন্দুস্তান টাইমস সংবাদমাধ্যমের একটি রিপোর্ট অনুযায়ী, এয়ারস্ট্রাইকে যে টার্গেটগুলি নষ্ট করা হয়েছে, তার মধ্যে মাসুদ আজহরের অতিথিশালা, যেখানে তার ভাই আব্দুল রৌফ আজহর থাকত, একটি হোস্টেল যেখানে জঙ্গিদের প্রশিক্ষণ দেওয়া হত৷ তবে এয়ারসট্রাইক এত সতর্কতার সঙ্গে করা হয়েছে যে, এই ক্যাম্পের মাঝখানে অবস্থিত মসজিদের কোন ক্ষতি হয়নি৷ তার কারণ ভারতীয় বায়ুসেনা মসজিদের কোনও ক্ষতি করতে চায়নি৷

এই রিপোর্টে বলা হয়, স্ট্রাইকের কয়েক ঘন্টা পরে পাকিস্তানের বিদেশ মন্ত্রী এয়ারস্ট্রাইকের তথ্য খারিজ করে দেয়৷ এই সংবাদমাধ্যম জানিয়েছে, ভারতীয় বিমানগুলি ১৬০ সেকেন্ডে পজিশন নেয় এবং এবং এয়ারস্ট্রাইক করে ফিরে আসে৷

১৪ ফেব্রুয়ারি কাশ্মীরের পুলওয়ামারে জইশের আত্মঘাতী জঙ্গি হামলা করে৷ এই ঘটনায় পুলওয়ামায় সিআরপিএফের ৪০ জন জওয়ান শহিদ হযন৷ তার পর গত ২৬ ফেব্রুয়ারি ভারতীয় বায়ুসেনা জইশের বালাকোটের ক্যাম্পে এয়ারস্ট্রাইক করে৷

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.